মূলধারার তাবলীগের অনুসারীদের উপর হেফাজতের উপর্যুপরি তান্ডবের ফলে, আসন্ন ইজতেমা নিয়ে চরম বিশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার আশঙ্কার মধ্যে সরকারের জননিরাপত্তা বিভাগের এক আদেশ জারী।

Photo_1549900323612.png

আসন্ন ১৭ ও ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ইজতেমা নিয়ে চরম বিশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার আশঙ্কার মধ্যে দিয়ে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জননিরাপত্তা বিভাগ-স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, রাজনৈতিক অধিশাখা-৬, অদ্য এক বিশেষ আদেশ জারী করে।

গত ১ বছর যাবত জঙ্গি গোষ্ঠী হেফাজতে ইসলামের উপর্যুপরি সন্ত্রাসী হামলায় দেশে দাওয়াতে তাবলীগের নিরীহ অনুসারীগন, তাদের মসজিদ আবাদী মেহনতে দারুণ ভাবে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। হেফাজতে ইসলামের মোড়কে পাকপন্থি “আলমী শুরারা” একের পর এক মসজিদ ও মারকাজ দখল, দেশী-বিদেশী জামাতকে মসজিদ থেকে বের করে দেওয়া, ওজাহাতি জোড়ের নামে তাবলীগের জেলায় জেলায় ইজতেমাতে বাঁধা, খুন-জখম সহ নানা ভাবে হয়রানি করে চলেছে।

সরকারের স্বরাষ্ট্র ও রিলিজিয়াস মন্ত্রীর সরাসরি ইন্ধনেই এ সকল অন্যায় কাজের প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে মূলধারার তাবলীগের অনুসারীরা। অবশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করে, মূলধারার তাবলীগের অনুসারীরা সাংবাদিক সম্মেলনসহ নানাভাবে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে।

অবশেষে অদ্য গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জননিরাপত্তা বিভাগ এক অফিস আদেশ জারী করে। তাবলীগের দেশী-বিদেশী অনুসারীরা যেন সকল রকম “হেফাজতি” হয়রানি থেকে নিরাপদে ইজতেমায় শরিক হতে পারে, তার জন্য এমন আদেশ জারী হয়েছে।

Advertisements

Leave a Reply