কাকরাইলের ঘটনায় পুলিশের মামলা দায়ের। আলমী ফেতনার পাকিস্তানী ষড়যন্ত্রের গন্ধ।

গত এপ্রিল ২৭, ২০১৮ তারিখে কাকরাইল মারকাজ মসজিদ হইতে পুলিশের উদ্ধারকৃত মোবাইল ফোন সিগন্যাল ব্লকার/জ্যামার সংক্রান্তে ডি,এম,পি রমনা মডেল থানায় কয়েকদিন বিলম্বে, উক্ত থানার এস,আই জনাব মোশাররফ হোসেন বাদী হইয়া, রমনা মডেল থানার মামলা নং-০৫ তাং-০২/০৫/১৮ ধারাঃ ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩) রুজু করেন।

এজাহারে পুলিশ অফিসারের বর্ণনা মতে, উক্ত তারিখে ঘটনাস্থলে পুলিশের উচ্চপদের অফিসারদের সহিত যোগাযোগের চেস্টাকালে মোবাইল ফোন ও নেটওয়ার্ক অকেজো পান। পরে তল্লাশিকালে ৩য় তলার ইনঃ মাহফুজের বাথরুম থেকে ১টি ও ৩য় তলার লিফলেটের সামনে থেকে আরও ১টি, মোট ২টি সিলভার কালারের সচল মোবাইল ফোন সিগন্যাল ব্লকার/জ্যামার জব্দ করেন।

ঘটনার পর থেকে প্রতারক মাহফুজ পলাতক। মাহফুজকে গ্রেফতারে পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নের মুখে। কাকরাইলের ঘটনায় এমন একটি ডিভাইস গোপনে এদেশে আনা এবং তা বসানো শুধুমাএ এদেশে দাওয়াতে তাবলীগের নিযামুদ্দিনের অনুসারীদের বা তাবলীগ জামাতের বিরুদ্ধে নয়, এটি এ দেশের সরকারের বিরুদ্ধে পাকিস্তানী ষড়যন্ত্রের গন্ধ। কতিথ পাক আলমী ফেতনার মূূল উৎপাটন করা এ সময়ে অতি জরুরী, তা না হলেে ৭১-এর পরাজিত শক্তি যে কোন বড় অঘটন ঘটিয়ে বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকারকে বেকায়দায় ফেলে দিবে।

Photo Editor-20180524_135249.jpg

(প্রতারক মাহফুজ)

 

 

Advertisements

Leave a Reply