আবারও হেফাজত গুন্ডাদের বিরুদ্ধে মারকাজ দখলের অভিযোগ!

www.banglatruenews24.com
উলামা আস-সু

হেফাজতে ইসলাম নেতা মাও: সাজেদুর রহমান বি বাড়িয়া মার্কাজ নিয়ন্ত্রণে মাদরাসা ছাএদের নিয়ে শক্তি প্রদর্শন করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নিজের চোখে দেখেছেন এমন সাথীর বেদনাভরা রিপোর্ট:

গতকাল বি-বাড়িয়া মার্কাজ দখলের যে চেস্টা হয়েছে তার মূলে ছিলো মওলানা সাজিদুর রহমান সাহেব। গতকাল সাপ্তাহিক ফায়সাল ছিলো মওলানা আনিস ভাই। মাসওয়ারা ভালভাবেই চলছিলো, শেষের দিকে মাদ্রাসার ছাত্র সহ সাজিদুর রহমান মার্কাজে প্রবেশ করে। এসে আগে থেকে মিম্বরে বসে থাকা প্রবীণ শূরা হাজী কুদরত আলী সাবকে সরিয়ে সে মিম্বরে বসে। মাসওয়ারার শেষ ওমর ছিলো যে “বৃহস্পতিবার হায়াতুস সাহাবা কে পড়বে”। তখন সাথীরা নিজেদের রায় পেশ করছিলো। হঠাৎ সাজিদুর রহমান, মওলানা আনিস ভাই এর পাশে বসা শূরার সাথী মাষ্টার রফিক সাব’কে বললো যে ফায়সালা দেয়ার জন্য।একজন সাথী যখনি বললো যে “আজকের ফায়সাল মওলানা আনিস ভাই”। তখনি মাদ্রাসার ছাত্ররা ঐ সাথীর উপর চড়াও হয়। পরে পুলিশ এসে পরিবেশ ঠান্ডা করে। এভাবেই সাজিদুর রহমান সুন্দর ভাবে চলা একটা দ্বীনি পরামর্শের মজলিশকে ফেতনায় রূপান্তর করে।
তিল তিল করে উম্মাহ অনুদানে যে কওমি মাদরাসা গড়ে তোলেছেন তা আজ তাবলিগ জামাত ধংসের জন্য কাজ করবে? মাদরাসা শিক্ষা চলে তো কওমের রক্ত ঘাম ঝড়ানো পয়সা দিয়ে আর সেটার নিরীহ ছাএদের নিয়ে এসে মার্কাজ দখল এটা কওমি মাদরাসার ভাবমূর্তি নষ্ট করছে নয় কি ? শান্তিপুর্ন পরিবেশে উনি বাহিরে হতে মাসওয়ারার শেষে এসে যেন গুন্ডামিই দেখালেন।সামান্য আদব আর নববী আখলাক থাকলে ফয়সালা করার দ্বায়িত্ব প্রাপ্ত মাও: আনিস সাহেবের হক নষ্ট করে অশান্তি সৃষ্টি করতে পারতোনা।

রিপোর্ট : ফয়সাল ইসলাম।

 

Advertisements

Leave a Reply