লাভ লেইন মারকাজ নিয়ন্ত্রনে হেফাজতের চিঠির জবাব, লাভ লেইনের সাথীদের নিযামুদ্দিনের প্রতি আসল লাভের বহিঃপ্রকাশ।

দাওয়াতে তাবলীগ নিয়ন্ত্রনে চট্টলার লাভ লেইন মারকাজে হেফাজত ইসলামের চিঠি ও লাভ লেইন সাথীদের জবাব :

FB_IMG_1523275798425.jpg

FB_IMG_1523275808802.jpg

হেফাজত ইসলামের হেফাজতে সমগ্র বাংলাদেশ।

PM-Kaomi-Madrassa_(1).jpg

IMG-20180322-WA0004-1.jpg

স্বয়ং বাংলাদেশের সাহসী প্রধানমন্ত্রীও।

কাজেই দাওয়াতে তাবলীগের মতো আম মানুষের মেহনতকে নিয়ন্ত্রনে বাঁধা কোথায়?

20180406_191740-1.png

আর যখন ঘরের শত্রু বিভিষন!

তাবলীগে কাকরাইলের মাও: যুবায়ের, রবিউল ও ওমর ফারুক এই তিনজনকে শুধু অবাঞ্চিত ঘোষনা করাই যথেষ্ট নয়, এদের ব্যাপারে তীব্র ঘৃনাবোধ নিয়ে চলা আজ সময়ের দাবী। যতদিন পর্যন্ত এই তিনজন নিজামউদ্দিনের এতায়েতের উপর ছিল, এবং যতদিন পর্যন্ত এই তিনজন বাংলাদেশী আমেরিকা প্রবাসী ড. আওয়ালের জিম্মাদারিতে তাবলীগ বিধবংসী পাকিস্তান পন্থী সল্পপাল্লার দুর্বল Subcontinent মিসাইল “আলমী শুরার” ফাদে পা দেননি, ততদিন পর্যন্ত অর্থাৎ গত ২০১৮ এর টংগী ওয়ার্ল্ড ইস্তেমার আগ পর্যন্ত বাংলাদেশের দাওয়াতে তাবলীগের কাজ নিযামুদ্দিনের ও কাকরাইলের পরামর্শ মোতাবেক চলছিল। যখন এর ব্যতিক্রম হলো, তখন গত ২০১৮ এর ওয়ার্ল্ড ইস্তেমার মাসওয়ারার মঞ্চায়ন, প্রথমবারের মত কাকরাইলের পরিবর্তে ঢাকার “যাএাবাড়ী মাদরাসার” মঞ্চে মঞ্চায়ন হলো এবং তাবলীগের ওয়ার্ল্ড আমীরকে যাএাবাড়ীর মঞ্চের পরামর্শে বাংলাদেশ থেকে ঠেঙানো হলো জাহেলিয়াতের যুগে যেমনটি করা হতো। খুলুসিয়াতের পরিবর্তে নফসানিয়াতের কারণে হক কে “হক” হিসাবে জানা ও বুঝা সত্ত্বেও তারা নিজামউদ্দিনের এতেয়াত থেকে বের হয়ে আসেন। যদি বের হয়ে এসেই তারা ক্ষান্ত থাকত, তবে হয়ত তাদের ব্যাপারে শুধুমাত্র আফসোসই কাজ করত। কিন্তু বাস্তবে তা ঘটেনি। তারা নিজামউদ্দিনের এতায়েত থেকে শুধু বের হয়ে এসেই ক্ষান্ত থাকেনি বরং এই তিনজন সারা দেশে সব শ্রেণীর মানুষের হৃদয়ের ভিতর যে পরিমান আস্থাভাজন লোক হিসাবে পরিচিত ছিল, তারা তাদের উপর সেই আস্থার খেয়ানত করেছে এবং তাদের বিদ্রোহ ও বিরোধিতার মাত্রা সীমা ছাড়িয়ে ভয়াবহ রুপ ধারণ করেছে যা আমরা বিগত ০৫ দিনের জোড় এবং টঙ্গি বিশ্ব ইজতিমায় ব্যাপক বিসৃংখলা সৃষ্টি হওয়ার মাধ্যমে প্রমান পেয়েছি। হজরতজী মাও: ইলিয়াস সাব (রহ:) আজ থেকে প্রায় একশত বছর আগে যে আশংকা করে গেছেন তা আজ সত্য প্রমানিত হল। উনার আশংকা মোটামোটি এরকম ছিল যে, যারা তাবলীগের বাইরে থেকে এর বিরোধিতা বা ক্ষতির চেষ্টায় লেগে থাকে তাদের ব্যাপারে আমি মোটেই ভীত নই, বরং যারা তাবলীগের ভিতরে থেকে এর ক্ষতির চেষ্টা করে তাদের তাদের ব্যাপারে আমার খুব ভয় হয়।
পরিশেষে হুজুর (সা:) এর জামানায় কাতেবি ওহীর ঘটনা এবং তা থেকে শিক্ষা গ্রহনের কথা মনে পড়ছে।

চট্টলার লাভ লেইন মারকাজ মসজিদের নিযামুদ্দিনের নাজুক সাথীগন শেষমেশ টিকবেন তো? হাটহাজারীর চিঠির জবাব লাভ লেইনের সাথীদের নিযামুদ্দিনের প্রতি আসল লাভের বহিঃপ্রকাশ। দীনের চট্টলার দায়ীগন দুনিয়া-আখেরাতের মালিক আল্লাহতালার লাভ থেকে যে কখনও বঞ্চিত হবেন না, এটা আমরা আশা করি ইনশাাআল্লাহ।

Advertisements

Leave a Reply