মিরপুর মারকাজ আপডেট!

বাংলাদেশের তাবলীগ জামাতের কেন্দ্রীয় মারকাজ কাকরাইল মসজিদের শুরা সদস্যদের অনুমোদন ছাড়াই দাওয়াত ও তাবলীগের মত এত গুরত্বপূর্ণ কাজে মাওঃ শাহরিয়ার মাহমুদ সাহেব ও তার সাথে আরো কয়েকজন মিলে নাকি সব গুজারি পয়েন্ট মীরপুর মার্কাজ মসজিদ বন্ধ করে দিয়েছে l কাকরাইল আর তাবলীগ ধবংস করার পিছনে উনার নাম বার বার শোনা যাচ্ছে। এই কাজে মাওলানা মুহাম্মাদ সালমান (মুহতামিম, মাদরাসা দারুর রাশাদ) জড়িয়ে পড়েছেন। মিরপুরের সংসদ সদস্য ইলিয়াস মোল্লা সাহেবকে ও নাকি হেফাজতি ভোটের লোভ দেখিয়ে ব্যাবহার করা হইতেছে। তাবলীগ জামাত বিরোধী আলেমগন খুব পুলকিত হয়ে উঠেছেন….এই বুঝি তাবলীগ ধবংস হয়ে গেল!
আজ যে ভাবে বাংলাদেশে তাবলীগের মারকাজ বন্ধের সূচনা হইতেছে, তেমনিভাবে গত ২ বছর আগে এর প্রথম শুরু হয়েছিল আমেরিকার নিউইয়র্কের মসজিদ আলফালাহ বন্ধের মধ্যে দিয়ে।
এক দিকে ইহুদী মুশরেক এর দালালগন মারকাজ গুলোতে তালা লাগানোর চেষ্টা করছে আর অপর দিকে আওয়ামীলীগ এর পা ধরে শাহরিয়ার মাহমুদ সাহেবরা মসজিদে তালা লাগানোর চেষ্টা করছে।

তাবলীগওয়ালাদের মাশোয়ারাতে দ্বীন জিন্দা হয় এই ফিকিরের বাহিরে দুষমন প্রতিহত করার মাশোয়ারা শুরু না করলে হয়তো সাময়িকভাবে আমেরিকাসহ বাংলাদেশে তাবলীগ বিরোধীরা দিনে দিনে সক্রিয় হতে থাকবে! তবে এটা সত্য আগাছা যেমন খুব দ্রুত বেড়ে ওঠে, তেমনি খুব দ্রুত মরে যায়। ডা: আওয়াল ও মুসফিক গং যতই শক্তিশালী হোক না কেন, আগাছার মতো উনাদেরও
দ্রুত বিদায় আসন্ন। আপাতত যার যেমনে মন চাইছে সেভাবেই আওয়াম মানুষের তাবলিগ জামাতকে নাচাচ্ছে। কিন্তু আল্লাহতায়ালার নুসরত, মদদ আওয়াম মানুষের সহিত ইনশাআল্লাহ। লেবু বেশী টিপলে তিতা হয়ে যায় ;ঠিক সমাধানের নামে তাবলীগকে যে ভাবে তছনছ করা হচ্ছে, মুনাফিকদের পতন হবে তার থেকে নির্মম।
যারা কাকরাইল মসজিদে প্রস্তুতি নিয়ে মারামারি করে, হুংকার দেয়, দাওয়াত ও তাবলিগের মসজিদ বন্ধ করে দেয়,কয়দিন পর কি ঐ শাহরিয়ার কবির সাহেব নামক তাবলীগ বিরোধীরা কাকরাইলে তালা লাগিয়ে দিবে না?
মাওলানা মুহাম্মাদ সালমান, শাহরিয়ার, মুফিত নজরুল গন ড. আওয়ালের পরামর্শে নিযামুদ্দিনের মারকাজ হাইজ্যাক করে হেফাজতের সহায়তায় ক্রমশ পাকিস্তানী “আলমী শুরা” চালুর ষড়যন্ত্র করেই যাবে?

Advertisements

2 thoughts on “মিরপুর মারকাজ আপডেট!

Leave a Reply